facebooktwitteryoutube
কম্পিউটার টিপস মোবাইল টিপস আউটসোর্সিং
by দীপজ্যোতি বিশ্বাস - no comments
পোর্টেবল করুন যেকোন অ্যাপ্লিকেশনকে খুব সহজে

বন্ধুরা প্রথমেই বাংলার প্রজুক্তির পক্ষ থেকে আপনাদের জোন্ন রইলো অভিনন্দোন। আসা করি সবাই ভালো আছেন।

আজকে আপনাদের জন্য ছোট্ট কিন্তু বেশ কাজের একটা জিনিস নিয়ে লিখছি।

 পোর্টেবল করুন যেকোন অ্যাপ্লিকেশনকে খুব সহজে

পোর্টেবল কি?

সাধারন অর্থে পোর্টেবল বলতে বহনীয় বা বহন যোগ্য অর্থাৎ যা সহজে এক স্থান হইতে অন্য স্থানে বহন করা যায়। আর Portable Application বা Portable App বলতে বুঝায় ঐ সকল অ্যাপ্লিকেশানকে যেগুলো আমরা পোর্টেবল ডিভাইস যেমনঃ Pendrive, Portable hard drive,  iPod, USB flash drive এর মাধ্যমে সহজে বহন করে যে কোন উইন্ডোজ পিসিতে ব্যবহার করতে পারি। এবং এখানে আরেকটি কথা না বললেই নয় যে, কোন সফটওয়্যার বা অ্যাপ্লিকেশান ইন্সটল না করেই পোর্টেবল অ্যাপ এর মাধ্যমে ব্যাবহার করার অন্যতম বৈশিষ্ট্য।

এর সুবিধা কি?

  •  পোর্টেবল  অ্যাপ (Portable App) যে কোন উইন্ডোজ পিসি তে Install ছাড়াই সহজে ব্যবহার করা যায়।
  • যেকোনো পোর্টেবল ড্রাইভ দ্বারা ব্যবহার করে এদের বহন করা যায়।
  •  বাড়তি সফটওয়্যারের প্রয়োজন নেই ।
  • পিসি তে ইন্সটল করা অন্য কোন সফটওয়্যার এর সাথে ইন্টারফেয়ার করে না।
  •  উইন্ডোজ এর রেজিস্ট্রিতে কোন ইনট্রি যুক্ত হয় না (উইন্ডোজ এর অটো জেনারেটেড ইনট্রি বাদে)

কিভাবে বানাবেন পোর্টেবল অ্যাপ?

প্রথমে Winrar সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে নিন, যেটি একটি পেইড সফটওয়্যার। কিন্তু ফ্রী ভার্সন এও কাজ করবে। ডাউনলোড করতে নিচের লিঙ্ক এ ক্লিক করুন। তারপর ইন্সটল করে নিন।

 

১। যে সফটওয়্যার টি পোর্টেবল বানাতে চান সেটিকে Pc তে Install করুন। আমি এখানে MS Logo সফটওয়্যার টিকে পোর্টেবল করে দেখাচ্ছি।

২। এবার ডেস্কটপ এ MS Logo এর যে আইকন আসলো, সেখানে রাইট ক্লিক করুন। নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন।

portable

৩।  এবার Properties মেনু ওপেন হলে “Find Target” এ ক্লিক করুন। নিচের ছবিটি অনুসরণ করুন।

portable2

৪। এবার দেখবেন সফটওয়্যার টির Location ওপেন হয়েছে । তা Ctrl+A চেপে Select করুন।

৫। এবার ঐ ফোল্ডারের যে কোন ফাইল এর উপর Mouse pointer রেখে রাইট ক্লিক করুন। দেখবেন নিচের মতো মেনু ওপেন হবে সেখান থেকে “Add to archive” এ ক্লিক করুন।
portable3

৬। এবার নিচের মতো উইন্ডো আসলে Archiving Options Create SFX archive , Create solid archive এবং Lock archive এ select করুন। দেখবেন Arhive Name যদি Mslogo.rar থাকে তাহলে সেটি Mslogo.sfx.exe হয়ে গেছে। এবং Compression method Best সিলেক্ট করুন।
portable4
৭। এবার Advanced ট্যাব এ ক্লিক করুন। তারপর SFX options এ ক্লিক করুন।
৮। এবার Setup এ ক্লিক করুন (Winrar এর ভার্সন ভেদে এটি অন্য কোন স্থানেও থাকতে পারে। তাই একটু কষ্ট করে “Setup Program” এবং “Run after Installation” লাইন দুটি খুজে নিন) 

৯। এবার Run after Installation এ যে মেইন এক্সিকিউটিভ ফাইল মানে .exe extension সহ যেমন- “logo32.exe” লিখুন। মনে রাখবেন– logo32 লেখাটিকে ডাবল Quote এর মধ্যে রাখতে হবে।

portable5

১০।  এবার “Modes” অপশনে ক্লিক করে Unpack to temporary folder এ ক্লিক selest করতে হবে।

১১। এবার “Text and Icon” এ ক্লিক করে পছন্দ অনুযায়ী আইকন এবং টেক্সট লিখুন (এটি ঐচ্ছিক বিষয় )

১২।  এবার OK করুন। দেখবেন Compressing Process শুরু হয়ে গিয়েছে।

১৩। এবার দেখবেন ঐ ফোল্ডারে Mslogo.sfx.exe নামে একটি ফাইল তৈরি হয়েছে।

১৪। প্রয়োজনে ফাইলের নামটি Rename করে নিন। “Mslogo_Portable.exe” নাম দিতে পারেন।

১৫।   ব্যস, কাজ শেষ। এবার ঐ ফাইলটি পোর্টেবল ড্রাইভ এ কপি করে নিন। পোর্টেবল ড্রাইভ থেকে ফাইলটি ওপেন করুন দেখবেন Temporary Folder এ সেটি Extract হচ্ছে আর ইন্সটল ছাড়াই ওপেন হচ্ছে, অর্থাৎ সফটওয়্যার টি পোর্টেবল হয়ে গিয়েছে।

  • যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে পুর Process টা পুনরায় রিপিট করুন। নিশ্চিত হবে।

সবাই ভালো থাকবেন সোময় পেলে আমার সাইটে ঘুরতে আসার নিমন্ত্রন জানিয়ে শেস করছি।@বাংলার প্রজুক্তি (দিপজ্যোতি বিশ্বাস)

Facebook

Likebox Slider Pro for WordPress